জাতীয় বাজেট ২০২০-২১ এ প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য বাজেট বরাদ্দ বিষয়ে আমাদের পর্যালোচনা ২০২০

ক্স প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য বরাদ্দ মূলত সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর খাতের বাজেট মোট বাজেটের ১৬.৮৩% এবং প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের বাজেট সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর খাতের বাজেটের মাত্র ১.৯৬%, (গত বছর ২.১৯%) যা মোট বাজেটের মাত্র ০.৩৩% (গত বছর ০.৩১%)। সুতরাং প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের চাহিদার তুলনায় এ বাজেট খুবই অপ্রতুল।

  • অসচ্ছল প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য ভাতা বরাদ্দ সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর মোট বরাদ্দের ৮৬.৫৩%। সুতরাং এটি একটি ভাতা নির্ভর বাজেট। এই ভাতা নির্ভর বাজেট দিয়ে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদেরমানবসম্পদে পরিণত করা সম্ভব নয়।
  • প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের বাজেট বরাদ্দ সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের মধ্যেই সীমাবদ্ধ। বাজেটে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের বরাদ্দ সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ে দৃশ্যমান হয়। কিন্তু প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের শিক্ষা, প্রশিক্ষণ, স্বাস্থ্য তথা সার্বিক উন্নয়নের বিষয়টি শুধুমাত্র সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে সম্পাদিত হতে পারে না। অন্তর্ভুক্তিমূলক উন্নয়ন ধারণায় মন্ত্রণালয় ভিত্তিক বাজেট বরাদ্দ প্রয়োজন ছিল।
  • প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের বাজেট বরাদ্দের ক্ষেত্রে কোভিড-১৯ এর কোন প্রতিফলন পরিলক্ষ্যিত হয়নি।
  • দেশে ৯০% প্রতিবন্ধী শিশু স্কুলে ভর্তি হওয়া থেকে বঞ্চিত হলেও এবছর উপকারভোগীর সংখ্যা ও বাজেট পূর্বের মতোই রাখা হয়েছে। প্রতিবন্ধী শিশুদেরশিক্ষার আওতায় আনতে অবশ্যই প্রতিবন্ধী শিক্ষা উপবৃত্তির সংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে বাড়ানো উচিত।
  • প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদেরবিষয়ে নীতি নির্ধারকদেরকল্যাণের ধারণাটি বাজেটে প্রতিফলিত হয়েছে কিন্তু সামগ্রিক উন্নয়নে তাদেরঅধিকারের ধারণাতে দেখা উচিত। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরাও যে সমাজে ও দেশের জন্য অবদান বয়ে আনতে পারে সেই দৃষ্টিভঙ্গিতে বাজেট বরাদ্দ হওয়া উচিত।
  • এ বছরের বাজেট প্রণয়নে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অংশগ্রহণের ব্যবস্থা ছিলো না।
    প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা জাতীয় বাজেটে নতুন কি পেল?
  • এবছর ২ লক্ষ ৫৫ হাজার জন নতুন ভাতাভোগী যুক্ত করে অসচ্ছল প্রতিবন্ধী ভাতা ভোগীর সংখ্যা ১৮ লক্ষ জনে বৃদ্ধি করা হয়েছে এবং এ বাবদ ২২৯ কোটি ৫০ লক্ষ টাকা অতিরিক্ত বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে।
  • বাজেটে প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন এর জন্য একটি নতুন প্রকল্প ৪৫ কোটি ৯২ লক্ষ টাকার প্রস্তাব করা হয়েছে যাতে প্রতিবন্ধী, বিধবা, এতিম (দুস্থ, অসহায়, অনগ্রসর) ও অতিদরিদ্র জনগোষ্ঠী যুক্ত রয়েছে। এক্ষেত্রে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের বরাদ্দ সুনির্দিষ্ট করা
  • সুবিধাবঞ্চিত, দরিদ্র, প্রবীণ, এতিম এবং প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য প্রশিক্ষণের মাধ্যমে আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন ও পুনর্বাসন এর জন্য ৪ কোটি ৯৬ লক্ষ টাকার বাজেট প্রস্তাব করা হয়েছে। এক্ষেত্রেও প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য বরাদ্দ সুনির্দিষ্ট করা হয়নি।
  • সমাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর কিছু খাতে বাজেট সামান্য বৃদ্ধি পেয়েছে যেমন- প্রতিবন্ধী সাহায্য ও সেবা কেন্দ্র, প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের জন্য মঞ্জরী, দগ্ধ ও প্রতিবন্ধীদের পুনর্বাসন তহবিল, নিউরো-ডেভেলপমেন্টাল প্রতিবন্ধী সুরক্ষা ট্্রাস্ট।

 

অ্যাকসেস বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন এর নির্বাহী পরিচালক জনাব আলবার্ট মোল্লা কর্তৃক উপস্থাপিত “জাতীয় বাজেট ২০২০-২১: প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অবস্থান” বিষয়ে পর্যালোচনা